অবশ্যই হাত ধোবেন যে আট গুরুত্বপূর্ণ সময়

Sunday, February 10th, 2019

যে আট গুরুত্বপূর্ণ সময় অবশ্যই হাত ধোবেন

ডেস্ক নিউজঃ বাথরুম ব্যবহারের পর সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে- এটি আমরা শৈশবেই শিখে এসেছি। কিন্তু হাত ধোয়ার জন্য এটিই একমাত্র সময় নয়। জীবনে এমন প্রচুর পরিস্থিতি রয়েছে যখন হাত ধোয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এখানে আট গুরুত্বপূর্ণ সময় উল্লেখ করা হলো যখন সাবান দিয়ে ভালো করে হাত পরিষ্কার করা উচিত:

১। শপিং কার্ট ধরার পর
শপিংয়ে রোলিং কার্ট কিংবা হ্যান্ড বাস্কেট ধরার পর যখন বেরিয়ে আসবেন, মনে রাখবেন এ সময় অবশ্যই হাত ধুয়ে ফেলতে হবে। শপিং কার্টগুলোর প্রতি বর্গ ইঞ্চি প্রায় এক লাখ ৩৪ হাজার ব্যাকটেরিয়া বহন করে। সুতরাং, এসব ব্যাকটেরিয়া এমন কিছু নয় যা আপনি বাড়িতে নিয়ে যাবেন।

২। কারো সঙ্গে হ্যান্ডশেক করার পর
পরিচিত কারো সঙ্গে দেখা হওয়ার পর তাদের সঙ্গে হ্যান্ডশেক করতে হবে- এটি একটি সাধারণ রীতি। কিন্তু মনে রাখবেন, কাজটি করার মাধ্যমে আপনি অন্যের হাতের জীবাণু ছড়িয়েছেন। এভাবে পরস্পরের হাতে ঠাণ্ডা ও ফ্লু ভাইরাস এবং সম্ভাব্য ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করতে পারে। সুতরাং, যদি এ রীতিটি এড়াতে না পারেন তবে হ্যান্ডশেকের পর হাতটি ধুয়ে ফেলতে ভুলবেন না।

৩। অন্য কারো সেলফোন ব্যবহারের পর
নানা কারণে প্রত্যেকের সেলফোনে প্রবেশ করছে হাজার হাজার জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া। সুতরাং, অন্যের সেলফোন ব্যবহারের পর আপনার হাতে ছড়িয়ে পড়ে এসব জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া। তাই, অন্যের সেলফোন ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। যদি তা সম্ভব না হয় তবে ব্যবহারের পর হাত ভালো করে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন। এ ছাড়া সপ্তাহের একদিন অন্তত আপনার সেল ফোনটি পরিষ্কার করুন।

৪। চিকিৎসকের চেম্বার থেকে বেরিয়ে
কোনো চিকিৎসকের চেম্বার বা হাসপাতাল-ক্লিনিক থেকে বের হয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে আপনাকে। সেখানে গিয়ে আপনি যে টেবিলে হাত রাখবেন সেখানে জীবাণু থাকতে পারে, যে কলমটি ব্যবহার করবেন তাতে জীবাণু থাকতে পারে। এ ছাড়া বাথরুমের কিংবা অন্য কোনো দরজার হাতল, কাউন্টার- সর্বত্রই জীবানুর আখড়া। তাই এসব জায়গা থেকে বেরিয়ে অবশ্যই হাত ধুয়ে ফেলতে হবে।

৫। রেস্টুরেন্ট মেনু অর্ডারের পর
রেস্টুরেন্টের মেনু সাধারণত সঠিকভাবে পরিষ্কার রাখা হয় না। এসব মেনু প্রচুর জীবাণু বহন করে। এগুলো স্পর্শ করার পর হাত ধুয়ে খাবার খেতে হবে।

৬। পশু-পাখি স্পর্শ করার পর
ঝোপের ভেতর থাকা কোনো বিড়ালের সঙ্গে আপনার বন্ধুত্ব হতে পারে। একই অবস্থা হতে পারে কোনো পাখির সঙ্গে। কিন্তু আপনি জানেন না, এটি কোথা থেকে এসেছে বা কী রোগ বহন করে চলেছে। তাই অপরিচিত পশুপাখি স্পর্শ করার পর হাত ধুয়ে ফেলা উচিত। কোনো প্রাণি কখনো কামড় দিলেই সাথে সাথে তা অবহিত করুন চিকিৎসককে।

৭। কাঁচা ডিম বা মাংস ধরার পর
কাঁচা ডিম বা মাংস স্পর্শ করার পর হাত ধুয়ে ফেলতে হবে -এটি সবাই জানে। কিন্তু পুরো ২০ সেকেন্ড ধরে কীভাবে ভালো করে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে এটি আপনি নাও জানতে পারেন। এটি করতে হবে যাতে আপনার ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া সব নির্মূল হয়ে যায়। একইভাবে অভ্যাস করুন রান্নার আগের খাবারগুলো ধরার পর।

৮। সর্দিকাশিতে হাতের ছোঁয়া লাগার পর
আপনি সবসময় অসুস্থ অন্য কাউকে এড়াতে চান ভালো কথা। কিন্তু আপনার নিজের অসুস্থতা থেকে অন্যরা যাতে সংক্রমিত না হয় সেটি দেখাও গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং, প্রতিবার সর্দি কাশিতে হাতের স্পর্শ লাগার পর হাত ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে যাতে আপনার হাত থেকে তা অন্যকারো শরীরে প্রবেশ করতে না পারে। তা ছাড়া এ সময় টিস্যু ব্যবহার করুন।

সূত্র : চিটশিট