তানোরে চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া !

Tuesday, February 12th, 2019

 

আলিফ হোসেন (তানোর, রাজশাহী প্রতিনিধি) রাজশাহীর তানোরের রাজনৈতিক অঙ্গনে ফের আলোচনায় উঠে এসেছে উপজেলা যুবলীগের (সাবেক) সভাপতি শরিফুল ইসলাম জনমনে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ও মূখরুচোক গুঞ্জন। তিনি পাঁচন্দর সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত মোহাম্মদ আলী মহামের পুত্র এবং তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুন্ডুমালা পৌর মেয়র গোলাম রাব্বানীর ছোট ভাই।

তানোরের রাজনৈতিক অঙ্গনে দীর্ঘদিন ধরে প্রায় শত বছরের রাজনৈতিক ঐতিহ্যবাহী ও তিনপ্রজন্মের জনপ্রতিনিধি পরিবারের সন্তান বলে শরিফুল ইসলাম পরিবার প্রচার করে আসছে। কিšত্ত কোনো পূর্বঘোষণা ব্যতিত আওয়ামী লীগের আদর্শ-নীতি-নৈতিকতা বির্সজন দিয়ে হঠাৎ করেই শরিফুল ইসলাম রাতারাতি খোলস কদল করে ওয়ার্কাস পার্টির প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় তাকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গনে সমালোচনার ঝড় উঠেছে জনমনে দেখা গেছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

স্থানীয়রা বলছে, স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করলেও কিছু একটা করার ছিল, কিন্তু ওয়ার্কাস পার্টির হাতুড়ি প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করে বিজয়ী হওয়া আর চাঁদে বসবাস করা একই কথা এটা দিবা স্বপ্ন দেখা ব্যতিত কিছু নয়। কারণ তানোরে ওয়ার্কাস পার্টির তেমন কোনো জনসমর্থন ও কমী বাহিনী নাই আবার শরিফুল ইসলামের তেমন কোনো ব্যক্তি ইমেজ নাই। এমনকি বিএমডিএ কর্মকর্তাকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত, সালিশ বাণিজ্য, ও এলাকার বিভিন্ন খালের গাছ হজম ইত্যাদি তার বিরুদ্ধে একাধিক নেতিবাচক প্রচার রয়েছে। অথচ পরীক্ষিত, কর্মী-জনবান্ধব, পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ, আদর্শিক, তরুণ ও মেধাবী নেতৃত্ব হিসেবে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ময়নার বিজয় নিশ্চিত।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামী লীগের একাধিক জৈষ্ঠ নেতা বলেন, নির্বাচনের মৌসুমে জনপ্রিয় প্রার্থীদের চাপে ফেলে অবৈধ সুবিধা আদায় করার উদ্দেশ্যে তারা এটা করেই থাকে। তারা বলেন, আসলে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে চাপে ফেলে অবৈধ সুবিধা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে তিনি প্রার্থী হয়েছেন এখন যদি তাকে সরাতে কিছু নগদ নারায়ন (অর্থ) দেয়া হয়, যেখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত সেখানে তিনি কি বিবেচনায় প্রার্থী হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, এর আগে এমপি হবার খোয়াব থেকে গোলাম রাব্বানী ‘বাঁবুই ভেঁজা’ হয়ে নিজ ঘরে পরবাসী হয়েছে, এবার তার ছোট ভাই শরিফুল ইসলাম উপজেলা চেয়ারম্যানের খোয়াব দেখে মাঠে নামলেও তার রণেভঙ্গ দেবার উপক্রম হয়েছে।

অপরদিকে দৃণমূলের অভিমত, এমপি ফারুক চৌধূরীর সঙ্গে বিরোধীতা করে গোলাম রাব্বানী নিঃস্ব বা রাজনৈতিক দেউলিয়া হয়ে প্রায় গৃহবন্দী রয়েছে, তাই ছোট ভাইকে তিনি উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিরোধী প্রার্থী করে এমপির ওপর চাপ সৃষ্টির কৌশল নিয়েছেন তাতে যদি এমপি এবার তাকে কাছে টানেন তবে সেই আশাও তার উবে গেছে দিয়েছে রণেভঙ্গ।

এ ব্যাপারে একাধিকবার যোগাযোগের চেস্টা করা হলেও ওয়ার্কাস পাটির প্রার্থী শরিফুল ইসলামের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।