বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দল যে চমক দিচ্ছে

Monday, April 15th, 2019

বিশ্বকাপ দলের ১৩ জন নিয়ে সংশয় নেই আগ থেকেই, কিন্তু বাকি দুজন কে? গ্রাফিকস: সানজিদ মাহমুদবিশ্বকাপ দলের ১৩ জন নিয়ে সংশয় নেই আগ থেকেই, কিন্তু বাকি দুজন কে? গ্রাফিকস: সানজিদ মাহমুদ

ডেস্ক নিউজঃ কাল বিশ্বকাপের দল দিয়ে দিচ্ছে বিসিবি। স্বপ্নের বিশ্বকাপ খেলতে কে কে ধরবেন লন্ডনের বিমান, সব জানা যাবে কাল। দলের বেশির ভাগ জায়গা নিয়ে সংশয় না থাকলেও কৌতূহল আছে দু-তিনটি জায়গা নিয়ে

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন এমনভাবে হেসে উঠলেন, যেন তাঁকে পরীক্ষার আগের দিন প্রশ্নপত্র ফাঁস করার অনুরোধ করা হচ্ছে! মিনহাজুলও কম যান না। এক গাল হেসে বলেন, ‘কাল সব জেনে যাবেন। খেলোয়াড় তালিকার খামটা লাল সিলগালা মেরে দেওয়া হয়েছে। এখন আর কিছু বলতে পারব না। যা বলার কাল বলব।’

তালিকায় কার কার নাম আছে, সেটি অবশ্য অনেকটাই জানা। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলে ১৩ জনকে নিয়ে যে খুব একটা দ্বিধা নেই, বিসিবি সভাপতি কিংবা নির্বাচকেরা আকারে-ইঙ্গিতে নানা সময়ে বলেছেন। ১৫ জনের স্কোয়াডে বাকি দুজন কে, সেটি নিয়েই যত কৌতূহল। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দল ঘোষণা হচ্ছে কাল দুপুর সাড়ে ১২টায়, সব উত্তর জানা যাবে তখনই। শুধু বিশ্বকাপ দল নয়, একই সঙ্গে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের দলটাও কাল দিয়ে দেবেন নির্বাচকেরা। বিশ্বকাপের দল ১৫ জনের হলেও আয়ারল্যান্ডের দল হবে ১৭ জনের।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ও সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের সঙ্গে তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, সাইফউদ্দীন, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে সংশয় থাকার কথা নয় নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্টের। গত নিউজিল্যান্ড সফরে ছিলেন এঁরা সবাই। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পরীক্ষিত বলে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এঁদের কারও কারও পারফরম্যান্স খারাপ হলেও তাঁদের গুরুত্ব কমে যাওয়ার কথা নয় নির্বাচক কিংবা টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে। পরীক্ষিত খেলোয়াড়দের অনেকের অবশ্য চোটাঘাত আছে। তবে কারও স্কোয়াডের বাইরে থাকার মতো চোট নয়।

দলে যে দুটি নাম নিয়ে ভীষণ কৌতূহল, দুজনই হতে পারেন বোলার। একজন স্পিনার, অন্যজন পেসার। সাকিব-মিরাজের সঙ্গে আরেকজন বাড়তি স্পিনার নেওয়ার ইঙ্গিত আছে আজ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের কথায়, ‘আমরা (আয়ারল্যান্ডে) ত্রিদেশীয় সিরিজে আরও একজন স্পিনারকে চিন্তা করছি।’ বিসিবি সূত্রে জানা গেল, নাঈম হাসান কিংবা নাজমুল ইসলাম অপু পূরণ করতে পারেন বাড়তি স্পিনারের জায়গাটা। তবে কাল দল দেওয়ার আগে এটি নিয়ে স্টিভ রোডসের সঙ্গে আরেকবার কথা বলে নেবেন নির্বাচকেরা। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে নাঈম কিংবা নাজমুলের একজন থাকলেও বিশ্বকাপে হয়তো জায়গাটা পূরণ হতে পারে মোসাদ্দেক হোসেনকে দিয়ে।

পেস আক্রমণে মাশরাফি, রুবেল, মোস্তফিজ, সাইফউদ্দিনের থাকাটা বিসিবি সভাপতি নিজেই নিশ্চিত করেছেন। কিন্তু ৫ম পেসারটা কে? তাসকিন আহমেদ নাকি শফিউল ইসলাম—দুজনের কথা গত কিছুদিনে ঘুরেফিরে এসেছে। সূত্র বলছে, এ দুজনের কেউ নন। বিসিবি সভাপতির কথা শুনেও তা-ই মনে হলো। বরং এখানে একটা চমক থাকছে! চমকের নাম হতে পারে—ওয়ানডে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা আবু জায়েদ! ইংলিশ কন্ডিশন বিবেচনায় অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন ৫ টেস্ট ও ৩ টি-টোয়েন্টি খেলা এ পেসার।

কদিন ধরে ইয়াসির আলীর নামটা ঘুরেফিরে আসছে। বিশ্বকাপ দলে না হলেও চট্টগ্রাম থেকে উঠে আসা এই তরুণ ব্যাটসম্যান আয়ারল্যান্ডে যাচ্ছেন, এটি মোটামুটি নিশ্চিত। যেহেতু চোট কিংবা গুরুতর কোনো সমস্যায় বিশ্বকাপ দলে সংযোজন-বিয়োজনের সুযোগ থাকছে ২২ মে পর্যন্ত, আয়ারল্যান্ড সিরিজে দুর্দান্ত করা কোনো নতুন মুখ যে লন্ডনের বিমান ধরবেন না, সেটি এখনই বলা যাচ্ছে না।