রম্যরচনাঃ একজন বেকুব ভোটারের আত্মকথা

Sunday, March 10th, 2019

রচনা : চাষা জহির
আমি বেকুব জনতার একজন। একটা ভোট আছে আমার! নির্বাচন এলেই দশ দিনের মহামূল্যায়িত ব্যক্তি আমি! এক প্যাকেট ভাল সিগারেট,দু’কাপ ফ্রেশ কফি,একটা শাড়ি বা লুঙ্গি,দু’গন্ডা পান আর হাজার টাকার একটা নোট পেলেই ভোটখানা দিয়ে দিই! প্রার্থীর ঋণের দায় মুক্তি লাভ করতে সচেষ্ট হই! কেননা,উনারটা আমি খেয়েছি,ভোট না দিলে পরপাড়ে জবাব দিতে হবে আমায়! যোগ্য প্রার্থী তো আর আমায় খাওয়াইনি! কাঁধে হাত রেখে আমাকে খুশি করে ভোটখানা নেওয়া হয়,পরে আমার দশ দিনের বেটাগিরি-বাহাদুরির বিনিময়ে পাঁচ বছর কুত্তা ঘুরা ঘুরি!

আমার বিবেচনায় :
যাহার দামী গাড়ি,পকেটে বান্ডেলকে বান্ডেল টাকা,চোখে দামি গ্লাস,গাঁয়ে সুরতহাল পোশাক-আশাক এবং ভাড়ায় পেছনে খাটানো হাজারো চামুন্ডা আছে-তিনিই যোগ্য প্রার্থী। যার টাকায় চা খেতে খেতে লোকে জয়োধ্বনি দিতে পারে,তিনিই বিজয়ের যোগ্য। প্রার্থীর সততা,সাধারণতা,যোগ্যতা,জনসম্পৃক্ততা,সৃষ্টিশীলতা,মন-মানসিকতার ধার আমি ধারিনা!
টাকা ও দাপটহীন প্রার্থী যতই যোগ্য,সৎ ও কল্যাণকামীই হোকনা কেন,আমার তাতে কিছু আসে যায়না! আমি মহারাজাধিরাজ ভোটার!

আমি বিজয়লাভের মহামূল্যবান ভোটার! আমি আমার ভোটের বেপারী,বিবি/সাহেবের ভোটের মহাজন আমি! তোমাদের মত সামারামা যেইসেই ভোটার আমি নই!!